Tuesday, February 21, 2017

My First Book : Sohoj Paath / আমার প্রথম বই - সহজ পাঠ

21st February is International Mother Language Day and our blog is hosting a celebration of languages. A series of blog posts by people from different walks of life - sharing their thoughts on languages, memories and more. International Mother Language Day is an observance held annually on 21 February worldwide to promote awareness of linguistic and cultural diversity and multilingualism.


(This post was sent to us by Sanghamitra Ghosh. Sanghamitra was born to book lover parents and all that she saw in her growing years was her family reading, reading and reading. Her first book was in Bangla (Sohoj Path by Rabindranath Tagore) and she loved it. "I was good in Bangla and mostly topped in class. I couldn't study Bangla as my honours subject because my well wishers advised against it saying there would be no job! So I studied philosophy. Tried to study it as a subsidiary but then again only three students applied for it and no department can run with three students. But I always read all sorts of books in Bangla starting from Bharatchandra, Debendranath Thakur to Suchitra Bhattacharya. I love my language so much that I can not say! Now translating into Bangla is my passion", says Sanghamitra)

About the post below :

Sanghamitra talks about Rabindranath’s Sohoj Paath being her first introduction to Bengali. It captured her budding mind totally. Starting with letters ...what was not there? You want a poem? It is there. Want a story? That is there too. In addition, there were illustrations by Nandlal Bose too. "I love it even today. It is a never ending relation. Maybe I was five when father bought me the first part of Sohoj Paath. He covered it with brown paper and wrote my name on it in his beautiful handwriting! I was so happy! My own book!", says Sanghamitra. Travel down memory lane with this post.


সহজ পাঠ  হ্যাঁ রবীন্দ্রনাথের সহজ পাঠই ছিলো আমার বাংলা শেখার হাতেখড়ি শিশু মনটাকে আমার একেবারে নিজের করে নিয়েছিলো অক্ষর পরিচয় দিয়ে শুরু করে কি ছিলো না সেখানে !  কবিতা চাও কবিতা , গল্প চাও গল্প , অলংকরণ চাও তাও  আছে একেবারে গেঁথে গেলাম এর সঙ্গে আজও ভালো লাগে   এক কখনো শেষ না হওয়া সম্পর্ক
আমার তখন হয়তো পাঁচ বছর  বাবা কিনে আনলেন সহজ পাঠ প্রথম ভাগ  সুন্দর করে ব্রাউন পেপার দিয়ে মলাট করে নাম লিখে দিলেন আমার
ভারী আনন্দ  আমার নিজের বই !
" -
ছোটো খোকা বলে
শেখে নি সে কথা কওয়া "
এই দিয়ে শুরু সেই পাতায় একটি হামাগুড়ি দেওয়া শিশুর ছবি এরপর স্বরবর্ণ ব্যঞ্জন বর্ণ  তারপর বাক্য " বনে থাকে বাঘ  গাছে থাকে পাখি " কবিতা -" আলো হয় , গেল ভয়  চারিদিক ঝিকমিক " কত সুন্দর সব অলংকরণ
এরপর মিশ্র আকার ইকারের উদাহরণ তার প্রয়োগে গল্প
তারপর বাবা আনলেন সহজ পাঠ দ্বিতীয় ভাগ তৃতীয় ভাগ  তাতে ছিলো সংযুক্তাক্ষর আর জটিল শব্দ আরো সুন্দর সুন্দর মন খুশি করা গল্প কবিতা আর অনেক অনেক ছবি  তখন হয়তো রঙিন বই ছাপা কঠিন ছিলো , ঠিক জানিনা , সব ছিল সাদা কালো  অবশ্য তার জন্যে উপভোগ করতে কোনো অসুবিধে হয়নি
এরপর অনেক অন্য বই পড়েছি একটু একটু করে বড়ো হতে হতে কিন্তু সহজ পাঠের স্মৃতি অমলিন রয়ে গেছে
এখন আমি সিনিয়র সিটিজেন   পর্যন্ত জীবনে আরো দুবার সহজ পাঠ  কিনেছি  একবার মেয়েদের শেখাতে , যদিও তারা বাংলার বাইরে বড়ো হয়েছে তবুও আরেকবার সম্প্রতি কাউকে কাউকে বাংলা ভাষা শেখাতে
বাংলার বাইরে থাকি বলেই কিনা জানিনা আমার মনে হয় বাংলায় লেখা গল্প কবিতা পড়ার পাঠক কমে গেছে সেটা সত্যি হলে খুব দুঃখ পাবো  স্মার্ট ফোন আসার পর থেকে ইংরিজি অক্ষর ব্যবহার করে বাংলা লেখার চলন হয়েছে,যেটা খুবই আপত্তিকর। এর চেয়ে বড়ো ক্ষতি আর হয় না।  আমরা প্রতিনিয়ত আমাদের প্রিয় মাতৃভাষাকে বিকৃত করে চলেছি। আমার ভয় যদি এইরকম চলতে থাকে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম মারাত্মক ভুলের মধ্যে বড়ো হবে। ইদানিং হোয়াটস্যাপে সাহিত্য চর্চা শুরু হয়েছে , সেখানেও দেখি অসংখ্য বানান ভুলে গল্প কবিতা লেখা চলছে। এগুলো অপসাহিত্য।  আমাদের এইসব আচরণ বাংলা ভাষার ক্ষতি করছে বলেই আমার ধারণাI শেষ করতে গিয়ে বলি,সহজ পাঠ আজও আমার কাছে আছে তবুও আমি সেই বাবার কিনে দেওয়া সহজ পাঠ টিকে খুঁজে বেড়াই , বাবার নিজের হাতে মলাট দেওয়া বইটি যার ওপর তাঁর সুন্দর হস্তাক্ষরে আমার নাম লেখা!

blog comments powered by Disqus